ঈশ্বরের প্রতিদিনের বাক্য: জীবনে প্রবেশ | উদ্ধৃতি 402

10-04-2022

জীবনের সাধনা তাড়াহুড়ো করে পাওয়ার মতো জিনিস নয়; জীবনের বিকাশ মাত্র দুই এক দিনে ঘটে না। ঈশ্বরের কাজ স্বাভাবিক এবং ব্যবহারিক এবং এতে একটি অপরিহার্য অবশ্যম্ভাবী প্রক্রিয়া আছে। অবতাররূপে যীশুর ক্রুশবিদ্ধকরণের কাজটি সম্পূর্ণ করতে সাড়ে তেত্রিশ বছর লেগেছিল—তাহলে মানুষের শুদ্ধিকরণ এবং জীবন পরিবর্তনের কাজ কি খুব কঠিন? ঈশ্বরকে প্রতিভাতকারী এক সাধারণ মানুষ সৃষ্টি করা সহজ কাজ নয়। বিশেষ করে অতিকায় লাল ড্রাগনের দেশে জন্মগ্রহণকারী ব্যক্তিদের কাছে আরোই দুরূহ, কেননা তাদের ক্ষমতা কম এবং ঈশ্বরকে দীর্ঘ সময় ধরে তাদের মধ্যে বাক্য বিতরণ করতে এবং কাজ করতে হয়। তাই ফললাভের জন্য অধৈর্য হয়ো না। তোমাকে অবশ্যই ঈশ্বরের বাক্য ভোজন ও পান করতে সক্রিয় হতে হবে এবং ঈশ্বরের বাক্যের প্রতি আরও বেশি মনোযোগ দিতে হবে। তাঁর বাক্যের পাঠ শেষে তোমাকে অবশ্যই সেগুলিকে বাস্তব অনুশীলনে প্রয়োগ করতে সক্ষম হতে হবে, এতে তোমার ঈশ্বরের বাক্যের জ্ঞান, অন্তর্দৃষ্টি, বিচক্ষণতা এবং প্রজ্ঞা বৃদ্ধি পাবে। এর মাধ্যমেই তুমি প্রত্যক্ষ উপলব্ধি ছাড়াই পরিবর্তন লাভ করবে। যদি তুমি তোমার নীতি হিসাবে ঈশ্বরের বাক্য ভোজন ও পান করতে পারো, সেগুলি পাঠ করো, জানতে পারো, অনুভব করো এবং সেগুলিকে অনুশীলনের নীতি হিসাবে গ্রহণ করতে সক্ষম হও তবে তুমি প্রত্যক্ষ উপলব্ধি ছাড়াই পূর্ণতা লাভ করতে পারবে। কিছু মানুষ আছে যারা বলে যে তারা ঈশ্বরের বাক্য পাঠ করেও বাস্তবে প্রয়োগ করতে পারছে না। তোমার এত ব্যস্ততা কীসের? একটি নির্দিষ্ট উচ্চতায় পৌঁছে গেলে, তুমি তাঁর কথাগুলিকে বাস্তবে প্রয়োগ করতে সক্ষম হবে। একটি চার পাঁচ বছর বয়সী শিশু কি বলবে যে তারা তাদের পিতামাতাকে সহযোগিতা করতে বা সম্মান জানাতে অক্ষম? তোমার নিজের বর্তমান মর্যাদা কতটা সে সম্পর্কে সচেতন থাকা উচিত। তুমি অনুশীলনযোগ্য বিষয়গুলি বাস্তবে প্রয়োগ করো এবং ঈশ্বরের ব্যবস্থাপনা ব্যাহতকারী ব্যক্তি না হওয়ার চেষ্টা করো। কেবল ঈশ্বরের বাক্য ভোজন ও পান করো এবং এখন থেকে একেই তোমার নীতি হিসাবে গ্রহণ করো। ঈশ্বর তোমাকে পরিপূর্ণতা দিতে পারবেন কিনা তা নিয়ে আপাতত চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। এখনই অত গভীর অনুসন্ধানের প্রয়োজন নেই। ঈশ্বরের বাক্য তোমার সুযোগ অনুসারে ভোজন ও পান করো এবং ঈশ্বর নিশ্চিতভাবেই তোমাকে পরিপূর্ণতা দেবেন। তবে, ঈশ্বরের বাক্য ভোজন ও পানের একটি নীতি আছে যা তোমাকে অনুসরণ করতেই হবে। অন্ধভাবে অনুসরণ করবে না। ঈশ্বরের বাক্য ভোজন ও পান করার সময়, একদিকে জ্ঞাতব্য বাক্যের সন্ধান করো—অর্থাৎ দর্শনের সাথে সম্পর্কিত বিষয়সমূহ—এবং অন্যদিকে, তোমার অনুশীলনযোগ্য বাক্যের সন্ধান করো—অর্থাৎ, যেগুলি তোমার পালন করা উচিত। এটির একটি দিক জ্ঞানের সাথে এবং অন্যটি নতুন নিয়ম পালনের সাথে সম্পর্কিত। একবার উভয়ই উপলব্ধি করে নিলে—অর্থাৎ তোমার জ্ঞাতব্য এবং অনুশীলনযোগ্য বিষয় উপলব্ধি করে নিলেই—তুমি বুঝতে পারবে কীভাবে ঈশ্বরের বাক্য ভোজন ও পান করতে হয়।

—বাক্য, খণ্ড ১, ঈশ্বরের আবির্ভাব ও তাঁর কার্য, রাজ্যের যুগই হল বাক্যের যুগ

আরও দেখুন

প্রতিদিন আমাদের কাছে 24 ঘণ্টা বা 1440 মিনিট সময় থাকে। আপনি কি ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভের জন্য তাঁর বাক্য শিখতে 10 মিনিট সময় দিতে ইচ্ছুক? শিখতে আমাদের ফেলোশিপে যোগ দিন। কোন ফি লাগবে না।

অন্যান্য ধরণের ভিডিও

Leave a Reply

শেয়ার করুন

বাতিল করুন

Messenger-এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন