অধ্যায় ৯১

আমার আত্মা কথা বলে এবং নিরন্তর কণ্ঠস্বরকে উচ্চারণ করে—তোমাদের মধ্যে কতজন আমাকে জানতে পারো? কেন আমাকে দেহধারণ করে তোমাদের মধ্যে আসতেই হবে? এটা একটা বিরাট রহস্য। তোমরা সারাদিন ধরে আমার কথা ভাবো ও ব্যাকুল হও, এবং তোমরা আমার স্তুতি করো, আমাকে উপভোগ করো, এবং প্রতিদিন আমাকে ভোজন ও পান করো, কিন্তু তা সত্ত্বেও তোমরা এখনো আমাকে জানো না। কত অজ্ঞ ও অন্ধ তোমরা! আমাকে কত অল্প জানো তোমরা! তোমাদের মধ্যে কতজন আমার ইচ্ছার প্রতি বিবেচনাশীল হতে পারো? অর্থাৎ, তোমাদের মধ্যে কতজন আমাকে জানতে পারো? তোমাদের মধ্যে সকলেই দানবিক গোত্রের, তা সত্ত্বেও তোমরা আমার ইচ্ছাকে পরিতৃপ্ত করতে চাও? সেকথা ভুলে যাও! আমাকে বলতে দাও: শয়তানের কার্যাবলি যতই ভালো হোক না কেন, সেগুলির উদ্দেশ্য হল আমার নির্মাণকে ধ্বংস করা এবং আমার ব্যবস্থাপনা ব্যাহত করা। তার কার্যাবলি যতই ভালো হোক না কেন, তার উপাদানের কোনো পরিবর্তন হয় না—সে আমাকে অস্বীকার করে। তাই অনেক মানুষ অনিচ্ছাকৃত ভাবে আমার হস্ত দ্বারা প্রহৃত হয় এবং অনিচ্ছাকৃতভাবে আমার গৃহ থেকে বিতাড়িত হয়। আজ, একটিও বিষয় (তা সে বড়ো হোক বা ছোটো) মানুষের দ্বারা সুসমন্বিত হয়নি; সবকিছুই আমার করায়ত্ত। কেউ যদি বলে যে সবকিছুই মানুষের নিয়ন্ত্রণে, তাহলে আমি বলব যে তুমি আমাকে অস্বীকার করো, এবং আমি অবশ্যই তোমাকে গুরুতর শাস্তি প্রদান করব এবং চিরতরে এমনভাবে পরিত্যাগ করব যে তোমার মাথার উপরে কোনো আশ্রয় থাকবে না। সকল ঘটনাবলী ও বিষয়সমূহের মধ্যে কোনটি আমার করায়ত্ত নয়? কোনটি আমার দ্বারা নির্দিষ্ট বা নির্ধারিত নয়? আর তোমরা এখনো আমায় জানার কথা বলো! এগুলি সব শয়তানোচিত কথাবার্তা। তোমরা অন্যদের সঙ্গে প্রতারণা করেছ, তাই তোমরা কি ভাবো যে তোমরা আমার সঙ্গেও প্রতারণা করতে পারবে? তুমি কি ভাবো যে তুমি কী করেছ তা যদি কেউ জানতে না পারে, তাহলে কিছুই হবে না? ভেবো না যে এত সহজে তুমি ছাড়া পেয়ে যাবে! আমি তোমাকে আমার সম্মুখে নতজানু হয়ে সে কথা বলতে বাধ্য করব। কথা না বলাটা গ্রহণযোগ্য নয়; এ হল আমার প্রশাসনিক ফরমান!

তোমরা কি সত্যিই উপলব্ধি করেছ কে আমার আত্মা, এবং কে আমার দেহরূপী সত্তা? আমার অবতাররূপের তাৎপর্য কী? তোমাদের মধ্যে কে এই মহান বিষয়টি নিয়ে যত্নসহকারে বিচার-বিবেচনা করেছ এবং আমার কাছ থেকে কোনো না কোনো উদ্‌ঘাটন লাভ করেছ? তোমরা সবাই নিজেদের ফাঁকি দিচ্ছ! আমি কেন এমন বলি যে তুমি অতিকায় লাল ড্রাগনের সন্তান? আজ আমি তোমাদের কাছে আমার অবতাররূপের রহস্য উদ্‌ঘাটন করব, এমন এক রহস্য যা এই বিশ্বের সৃষ্টিলগ্ন থেকে মানুষ ভেদ করতে পারেনি, যা আমার ঘৃণার অনেক লক্ষ্যবস্তুকে ধ্বংস করেছে। এবং তা আজও ঘটছে। আমার দেহধারণের কারণে, যাদের আমি ভালোবাসি তাদের অনেককে নিখুঁত করা গিয়েছে। ঠিক কী কারণে আমাকে দেহধারণ করতেই হবে? এবং আমার রূপ যেমন, (আমার উচ্চতা, চেহারা, আত্মিক উচ্চতা ইত্যাদি সবকিছুর নিরিখে) তা কেন তেমন? এই নিয়ে কারো কিছু বলার আছে? আমার অবতাররূপের মধ্যে এত তাৎপর্য রয়েছে যে তার সবকিছু সত্যিই বলা যায় না। এখন আমি তোমাদের এর শুধু একটা অংশবিশেষ বলব (যেহেতু আমার কর্মের ধাপগুলি এতদূর প্রসারিত হয়েছে, তাই আমাকে এটা করতেই হবে এবং এটা বলতেই হবে): আমার অবতাররূপ প্রাথমিকভাবে আমার প্রথমজাত পুত্রদের প্রতি উদ্দিষ্ট, যাতে আমি তাদের পরিচালনা করতে পারি এবং যাতে তারা আমার সঙ্গে কথোপকথন এবং আলাপচারিতা করতে পারে; এর থেকে এটাও দেখা যায় যে আমি ও আমার প্রথমজাত পুত্ররা পরস্পরের সঙ্গে খুবই অন্তরঙ্গ (এর অর্থ হল আমরা একত্রে ভোজন করি, একত্রে অবস্থান করি, একত্রে বাস করি, এবং একত্রে কার্যসাধন করি), যাতে বাস্তবে তারা আমার দ্বারা প্রতিপালিত হতে পারে—এগুলি শূন্যগর্ভ শব্দ নয়, বরং বাস্তব। পূর্বে, মানুষ আমাকে বিশ্বাস করেছে কিন্তু বাস্তবকে উপলব্ধি করতে পারেনি, এবং তার কারণ ছিল যে, আমি অবতাররূপ ধারণ করিনি। আজ, আমার অবতাররূপ তোমাদের সকলকে বাস্তবকে উপলব্ধি করতে অনুমতি দেয় এবং যারা আন্তরিকভাবে আমাকে ভালোবাসে তাদের আমার ভাষণ ও আচরণ, এবং যেভাবে আমি বিষয়গুলিকে পরিচালনা করি তার নেপথ্যের নীতিগুলির মাধ্যমে আমাকে—স্বয়ং প্রাজ্ঞ ঈশ্বরকে—জানার অনুমতি দেয়। আমার অদৃশ্য কর্মের মধ্যে আমার একটি দিক, অর্থাৎ আমার আমার মানবতাকে, প্রত্যক্ষ করার জন্য যারা আন্তরিক ভাবে আমার অন্বেষণ করে না, এবং এইভাবে আমাকে অস্বীকার করে, এবং তারপর “কোনো কারণ ছাড়াই” মৃত্যুবরণ করে, এটা তাদেরও আমার দ্বারা আঘাতপ্রাপ্ত হতে দেয়। শয়তানকে অপমানিত করার মাধ্যমে, অবতাররূপ আমার হয়ে সবচেয়ে জোরোলো সাক্ষ্য দেয়; আমি যে শুধুমাত্র দেহ থেকে অবতীর্ণ হতে সক্ষম হই তা-ই নয়, বরং দেহের মধ্যেও বাস করতে পারি। আমার কোনো স্থানগত বা ভৌগলিক বিধিনিষেধ নেই; আমার কাছে কোনোরকম কোনো প্রতিবন্ধকতা নেই, এবং সবকিছুই মসৃণভাবে প্রবাহিত হয়। এর মধ্যেই শয়তান সবচেয়ে বেশি কালিমালিপ্ত হয়, এবং আমি যখন দেহ থেকে অবতীর্ণ হই, আমি তখনো আমার দেহরূপে কর্মসাধন করে যাই, এবং আমি বিন্দুমাত্র প্রভাবিত হই না। আমি এখনও পর্বতমালা, নদনদী, সরোবর, এবং এই বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের প্রতিটি কোণে এবং এর মধ্যে স্থিত বিবিধ বস্তুতে পদচারণা করি। যারা আমার কাছ থেকে জন্মলাভ করেছে কিন্ত আমাকে অস্বীকার করতে উদ্যত হয়েছে, তাদের সকলকে অনাবৃত করার জন্যই আমি অবতাররূপ ধারণ করেছি। আমি যদি দেহরূপ ধারণ না করতাম, তাহলের তাদের অনাবৃতকরণের আর কোনো পথ থাকত না (এখানে তাদের কথা বোঝানো হচ্ছে যারা আমার সামনে একরকম আচরণ করে এবং আড়ালে আরেক রকম)। আমি যদি কেবল একটি আত্মা হয়েই বিরাজ করতাম, তাহলে মানুষ তাদের ধারণায় আমাকে পূজা করত, এবং ভাবত যে আমি একজন অবয়বহীন এবং নাগালের বাইরে থাকা ঈশ্বর। বর্তমানে আমার অবতাররূপ মানুষের ধারণার ঠিক বিপরীত (আমার উচ্চতা ও চেহারার নিরিখে), কারণ তাঁকে খুব সাধারণ দেখতে এবং তাঁর উচ্চতাও খুব বেশি নয়। এটি বিষয়টিই শয়তানকে সবচেয়ে বেশি অসম্মানিত করে এবং এটিই মানুষের ধারণার বিরুদ্ধে সবচেয়ে জোরালো যুক্তি (শয়তানের নিন্দা। আমার বাহ্যিক রূপ যদি সবার চেয়ে আলাদা হত, তাহলে সেটা সমস্যাজনক হত—প্রত্যেকে আমাকে পূজা করতে আসত এবং নিজেদের পূর্বধারণার মাধ্যমে আমাকে উপলব্ধি করত, এবং আমার জন্য সুন্দর সাক্ষ্য দিতে তারা সক্ষম হত না। এইভাবেই, আজ আমার যে প্রতিমূর্তি আমি ধারণ করেছি, তা উপলব্ধি করা একেবারেই কঠিন নয়। প্রত্যেকেরই মনুষ্যোচিত ধারণার বাইরে বেরোনো উচিত এবং তাদের শয়তানের চতুর চক্রান্তের ফাঁদে পড়া উচিত নয়। আমার কর্মের প্রয়োজনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ ভাবে, অংশানুক্রমে, ভবিষ্যতে তোমাদের আমি আরো বলব।

আজ, আমার মহান কার্য সাফল্য লাভ করেছে, এবং আমার পরিকল্পনা সম্পন্ন হয়েছে। আমি এক মনুষ্যগোষ্ঠী অর্জন করেছি যারা এক ও অভিন্ন হৃদয়ে আমার সঙ্গে সহযোগিতা করে। এটা আমার কাছে সবচেয়ে মহিমান্বিত সময়। আমার যা কিছু করার প্রয়োজন তা আমার সঙ্গে একযোগে সম্পন্ন করতে আমার প্রিয়তম পুত্ররা (যারা আমাকে ভালোবাসে) আমার সঙ্গে সমভাব হতে সক্ষম। এটা একটা চমকপ্রদ বিষয়। আজকের পর, আমি যাদের প্রতি বিরূপ মনোভাব পোষণ করি তারা পবিত্র আত্মার কর্ম লাভ করবে না, অর্থাৎ, আমি অতীতে যা বলেছি তার সঙ্গে যারা সঙ্গতি রক্ষা করবে না আমি তাদের পরিত্যাগ করব। আমি যা বলি মানুষকে তার সঙ্গে নিখুঁত ভাবে সঙ্গতি রক্ষা করতেই হবে। তা মনে রেখো! তোমাদের নিখুঁতভাবে সঙ্গতিরক্ষা করতে হবে। ভুল বুঝো না; সবকিছুই আমার উপরে। মনুষ্যগণ—আমাকে কোনো শর্ত দিয়ো না। আমি যদি বলি তুমি যোগ্য, তবে তা অমোঘ; যদি আমি বলি তুমি তা নও, তবে যন্ত্রণাক্লিষ্ট হয়ো না এবং স্বর্গ ও মর্ত্যকে দোষ দিয়ো না। এই সবকিছুই আমার আয়োজন। কে বলেছে যে তোমায় নিজেকে অসম্মান করতে হবে? কে বলেছে যে তোমাকে লজ্জাজনক নির্বুদ্ধিতার পরিচয় দিতে হবে? এমনকি তুমি যদি কিছু নাও বলো, তুমি আমার কাছ থেকে সত্যকে গোপন করতে পারবে না। আমি যখন বলি যে আমিই হলাম স্বয়ং ঈশ্বর যিনি মানুষের হৃদয়ের অন্তঃস্থল পরীক্ষা করেন, তখন সেই বাক্যগুলি কার উদ্দেশে নির্দেশিত? যারা অসৎ তাদের উদ্দেশে আমি এটা বলি। কী নির্লজ্জ—আমার আড়ালে এমন কাজ করো! তোমরা কি আমার চোখকে ফাঁকি দিতে চাও? তা অত সহজ নয়! এখান থেকে অবিলম্বে চলে যাও! বিদ্রোহের পুত্র! তুমি নিজেকে ভালোবাসো না, এবং তুমি নিজেকে সম্মান করো না! তুমি নিজের প্রতি যত্নশীল নও, তা সত্ত্বেও তুমি কি এখনও চাও যে আমি তোমাকে ভালোবাসি? তা ভুলে যাও! আমি এই ধরনের এমনকি একজন দুরাত্মাকেও চাই না। আমার থেকে দূর হয়ে যাও, তোমাদের সকলে! এটা আমার নামের উপর সবচেয়ে গুরুতর কলঙ্ক লেপন করে; তোমরা তা সেটা স্পষ্টভাবে দেখতে না পাও তাহলে চলবে না। এই দুষ্ট ও ব্যভিচারী পুরানো যুগের কোনো কলুষের দ্বারা দূষিত হওয়ার হাত থেকে তোমাদের নিজেদের রক্ষা করতেই হবে; তোমাদের সম্পূর্ণভাবে পবিত্র ও নিষ্কলঙ্ক হতেই হবে। যারা আজ আমার সঙ্গে রাজা হয়ে রাজত্ব করার যোগ্য তারা হল সেই সকল ব্যক্তি যারা কোনো কলুষের দ্বারা দূষিত হয়নি, কারণ আমিই স্বয়ং পবিত্র ঈশ্বর, এবং আমি এমন কাউকে চাই না যে আমার নামকে কলঙ্কিত করে। আমাকে পরীক্ষা করার জন্য এই ধরনের ব্যক্তিদের শয়তান প্রেরণ করে, এবং প্রকৃত অর্থেই তারা সকলে শয়তানের অনুচর যাদের পরাজিত তথা অপসৃত (অতল গহ্বরে তাদের নিক্ষেপ করতে হবে)।

আমার পরিবার পবিত্র এবং নিষ্কলঙ্ক, এবং আমার মন্দির মহৎ এবং মহিমান্বিত (অর্থাৎ সেইসব ব্যক্তি যারা আমি যা এবং আমার যা রয়েছে তার অধিকারী)। কে তার ইচ্ছামতো প্রবেশ করে সমস্যা সৃষ্টির সাহস রাখে? আমি নিশ্চিতভাবেই তাদের ক্ষমা করব না। তারা সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস হবে এবং তাদের ভীষণভাবে লজ্জিত হতে হবে। আমি বিচক্ষণ ভাবে কাজ করি। আমাকে যারা অস্বীকার করে এবং আমার নামকে যারা কলঙ্কিত করে তাদের আমি কোনো তরোয়াল ছাড়াই, কোনো বন্দুক ছাড়াই, এবং কোনো অঙ্গুলিহেলন না করেই, সম্পূর্ণরূপে পরাস্ত করব। আমি মহানুভব, এবং এমনকি শয়তান যখন বিরাট সমস্যার সৃষ্টি করে, তখনও আমি একটা অচঞ্চল ভাবে নিজের কর্ম অব্যাহত রাখি; আমি তাতে কোনো মনোযোগ দিই না এবং আমার পরিচালনামূলক পরিকল্পনা সম্পন্ন করার মাধ্যমে আমি তা পরাস্ত করব। এটাই হল আমার শক্তি এবং আমার প্রজ্ঞা, এবং তার চেয়েও বড় কথা, এটা হল আমার অনন্ত মহিমার একটা ক্ষুদ্র অংশ। আমার চোখে, যারা আমাকে অস্বীকার করে তারা হল কাদায় কিলবিল করে বেড়ানো কীটের মতো, যাদের আমি যেকোনো সময়ে আমার ইচ্ছার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ ভাবে পা দিয়ে পিষে মেরে ফেলতে পারি। তবে, আমি প্রজ্ঞা দিয়ে কার্যসাধন করি। তাদের মোকাবিলা করার জন্য আমার প্রথমজাত পুত্রদের পাবো; আমার কোনো তাড়াহুড়ো নেই। আমি একটা নির্দিষ্ট পদ্ধতি অনুসারে, একটা সুশৃঙ্খল নিয়মে এবং সূক্ষ্মতম ভুলভ্রান্তি ছাড়াই কার্য সাধন করি। সেইসব প্রথমজাত পুত্ররা যারা আমার থেকে জন্মলাভ করেছে তাদের আমি যা তার অধিকারী হতে হবে, এবং আমার কীর্তিসমূহেরর মধ্যে আমার অনন্ত প্রজ্ঞা প্রত্যক্ষ করার জন্য সক্ষম হতে হবে!

পূর্ববর্তী: অধ্যায় ৯০

পরবর্তী: অধ্যায় ৯২

প্রতিদিন আমাদের কাছে 24 ঘণ্টা বা 1440 মিনিট সময় থাকে। আপনি কি ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভের জন্য তাঁর বাক্য শিখতে 10 মিনিট সময় দিতে ইচ্ছুক? শিখতে আমাদের ফেলোশিপে যোগ দিন। কোন ফি লাগবে না।👇

সম্পর্কিত তথ্য

সর্বশক্তিমানের দীর্ঘশ্বাস

তোমার হৃদয়ে এক বিশাল গোপন বিষয় আছে যার ব্যাপারে তুমি কখনও সচেতন ছিলে না, কারণ তুমি বেঁচে আছ আলোকহীন এক জগতে। তোমার হৃদয় আর তোমার আত্মাকে...

পরিশিষ্ট ১ ঈশ্বরের আবির্ভাব এক নতুন যুগের সূচনা করেছে

ঈশ্বরের ছয় হাজার বছরের পরিচালনামূলক পরিকল্পনা শেষ হতে চলেছে, এবং যারা তাঁর আবির্ভাবের পথ চেয়ে আছে তাদের সকলের জন্য স্বর্গের দ্বার ইতিমধ্যেই...

শুধুমাত্র অন্তিম সময়ের খ্রীষ্ট মানুষকে অনন্ত জীবনের পথ দেখাতে পারেন

জীবনের গতিপথ কারও নিয়ন্ত্রণে থাকে না, বা এটি সহজে অর্জন করতে পারার মতো বিষয়ও নয়। কারণ জীবন কেবল ঈশ্বর প্রদত্ত, অর্থাৎ, শুধুমাত্র ঈশ্বর...

একটি সাধারণ আধ্যাত্মিক জীবন মানুষকে সঠিক পথে নিয়ে যায়

তোমরা ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাসের পথে খুব সামান্য অংশই হেঁটেছো, এবং তোমরা এখনও সঠিক পথে প্রবেশ করতে পারোনি, তাই তোমরা এখনও ঈশ্বরের নির্ধারিত...

সেটিংস

  • লেখা
  • থিমগুলি

ঘন রং

থিমগুলি

ফন্টগুলি

ফন্ট সাইজ

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

পৃষ্ঠার প্রস্থ

বিষয়বস্তু

অনুসন্ধান করুন

  • এই লেখাটি অনুসন্ধান করুন
  • এই বইটি অনুসন্ধান করুন

Messenger-এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন