অধ্যায় ৮৪

আমার বিষয়ে তাদের জ্ঞানের অভাবের কারণে, মানুষ অসংখ্য বার আমার ব্যবস্থাপনায় বাধা দিয়েছে এবং আমার পরিকল্পনাকে দুর্বল করে দিয়েছে, কিন্তু আমার অগ্রসরমান পদক্ষেপকে তারা কখনওই বাধা দিতে সক্ষম হয়নি। তার কারণ আমি প্রজ্ঞার ঈশ্বর। আমার মধ্যে রয়েছে অনন্ত প্রজ্ঞা এবং আমার মধ্যে রয়েছে সীমাহীন ও অতল রহস্যসমূহ। স্মরণাতীত কাল থেকে, মানুষ কোনও দিনই এই রহস্যগুলির তল পেতে ও সেগুলিকে সম্পূর্ণভাবে উপলব্ধি করে উঠতে সমর্থ হয়নি। তাই নয় কি? আমার দ্বারা উচ্চারিত প্রতিটি বাক্যের মধ্যে শুধু যে প্রজ্ঞাই রয়েছে তা নয়, প্রতিটি বাক্যের মধ্যে আমার গোপন রহস্যও রয়েছে। আমার ক্ষেত্রে সমস্ত কিছুই রহস্য; আমার প্রতিটি অংশই রহস্য। আজ তোমরা নিছকই সেই রহস্যকে প্রত্যক্ষ করেছ মাত্র, অর্থাৎ তোমরা আমার ছবি প্রত্যক্ষ করেছ—কিন্তু তার অভ্যন্তরে প্রচ্ছন্ন এই রহস্য তোমরা এখনও উন্মোচন করে উঠতে পারোনি। মানুষ আমার রাজ্যে প্রবেশ করতে পারে শুধুমাত্র আমার দেখানো পথ অনুসরণ করেই; তার অন্যথা ঘটলে তারা এই পৃথিবীর সঙ্গেই অবলুপ্ত হয়ে যাবে এবং ভস্মে পরিণত হবে; আমি স্বয়ং ঈশ্বর ছাড়া আর কেউ নই। “ঈশ্বরের মূর্ত প্রকাশ” জাতীয় পূর্বপ্রচলিত বচনগুলি ইতিমধ্যেই অচল হয়ে গিয়েছে; এই জরাজীর্ণ ও প্রাচীন বচনগুলি বর্তমানে আর প্রযোজ্য নয়। তোমাদের মধ্যে কতজন তা উপলব্ধি করতে পেরেছ? তোমাদের মধ্যে কতজন আমার সম্পর্কে এই মাত্রা পর্যন্ত নিশ্চিত হয়ে উঠতে পেরেছ? আমায় সকল বিষয়েই স্পষ্ট ব্যাখ্যা ও নির্দেশ দিতে হবে।

শয়তানের রাজ্য নিশ্চিহ্ন করে দেওয়া হয়েছে এবং সে রাজ্যের মানুষদের আমার সেবা করার কাজও খুব দ্রুতই শেষ হয়ে যাবে। এক এক করে তাদের আমার আবাস থেকে বিতাড়িত করা হবে, যার অর্থ হল, যারা এতদিন বিভিন্ন ভূমিকায় ছদ্মবেশ ধারণ করেছিল, তাদের সকলেরই প্রকৃত চরিত্র প্রকাশিত হয়েছে, এবং তাদের সকলকেই আমার রাজ্য থেকে বিচ্ছিন্ন করা হবে। ভুলে যেও না! অতীতে আমি যাদের ত্যাগ করেছি তারা সহ, আজ থেকে আমি যাদের ত্যাগ করছি, তারা সকলেই নিছকই অভিনয় করে চলেছে, এবং তারা সকলেই নিছক কৃত্রিম; তারা আমার জন্য নিছক একটি নাটক মঞ্চস্থ করে চলেছে, এবং, এ নাটকের অভিনয় শেষ হয়ে গেলে, তাদের অবশ্যই মঞ্চ ছেড়ে চলে যেতে হবে। যারা প্রকৃতই আমার সন্তান, তারা আনুষ্ঠানিকভাবে আমার রাজ্যে বাস করবে, তারা আমার ভালোবাসা পাবে এবং তোমাদের জন্য আমি ইতিমধ্যেই যে আশীর্বাদ প্রস্তুত করেছি, সেই আশীর্বাদ লাভ করবে। প্রথমজাত পুত্রগণ আশীর্বাদধন্য! যেহেতু তোমাদের আমি আগে থেকেই প্রশিক্ষিত করে রেখেছি, তাই তোমরা এখন আমার ব্যবহারের উপযুক্ত। এমনটা বিশ্বাস করো যে আমিই সর্বশক্তিমান ঈশ্বর। যে বস্তু মানুষ অর্জন করতে পারে না, তা আমি বিনা বাধায় করতে পারি, এবং সে ক্ষেত্রে বিবাদের বিন্দুমাত্র স্থান নেই। এমনটা মনে কোরো না যে তোমাদের পক্ষে কোনও কিছুই করা সম্ভব নয়, অথবা তোমরা আমার প্রথমজাত সন্তান হয়ে ওঠার পক্ষে উপযুক্ত নও। তোমরা সম্পূর্ণভাবেই যোগ্য! তার কারণ সমস্ত কিছুই কার্যকরী হয়ে ওঠার জন্য আমার উপর নির্ভরশীল; সবকিছুই ফলপ্রসূ হয়ে ওঠার জন্য আমার উপর নির্ভর করে। বর্তমানে তোমাদের কেন মনে হচ্ছে যে তোমাদের আত্মিক উচ্চতা এমনতর? তার কারণ নিছকই এই যে তোমাদের সঠিকভাবে ব্যবহার করার সময় এখনও আসে নি। মহৎ প্রতিভাধরদের তুচ্ছ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যায় না; তোমরা কি বুঝতে পারছ? সমগ্র বিশ্বজগতে তোমরা কি নিছকই এই ক্ষুদ্র চিনের মধ্যে আবদ্ধ হয়ে থাকবে? অর্থাৎ, সমগ্র বিশ্বজগতের সমস্ত মানুষকে তোমাদের হাতেই অর্পণ করা হবে, যাতে তোমরা তাদের চালিত করতে ও নেতৃত্ব দিতে পারো, কারণ তোমরাই প্রথমজাত সন্তান, এবং তোমাদের ভ্রাতৃবর্গকে নেতৃত্ব দেওয়ার কর্তব্য তোমাদেরই পালন করতে হবে। এমনটা জেনে রাখো! আমিই সর্বশক্তিমান ঈশ্বর! আমি আবারও এই বিষয়টির উপর জোর দিচ্ছি যে, আমি তোমাদের আনন্দ উপভোগ করার অনুমতি দিই। আমিই তিনি, যিনি সক্রিয়—পবিত্র আত্মা সর্বত্রই কর্মরত, এবং তিনিই ব্যক্তিগতভাবে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

অতীতে আমার পরিত্রাণ সম্পর্কে মানুষের কোনও বোধই ছিল না। এখন কি তোমরা তা উপলব্ধি করেছ? আমার পরিত্রাণের বিভিন্ন দিক রয়েছে: একটি দিক হল, কিছু মানুষ একেবারেই পূর্বনির্ধারিত নয়, অর্থাৎ তারা আমার অনুগ্রহ লাভ করতে আদপেই সমর্থ হবে না; আর একটি দিক হল, কিছু মানুষ রয়েছে যারা প্রাথমিকভাবে পূর্বনির্ধারিত, তারা কিছুকাল আমার অনুগ্রহ লাভ করবে, কিন্তু আমার দ্বারাই পূর্বনির্ধারিত সেই কাল অতিক্রান্ত হওয়ার পরে আমি তাদের বহিষ্কার করব, এবং অতঃপর তাদের জীবনের সম্পূর্ণ বিলোপ ঘটবে। আরও একটি দিক হল এই যে, কেউ কেউ রয়েছে যারা আমার দ্বারা পূর্বনির্ধারিত ও আমার দ্বারাই মনোনীত, এবং তারা আমার অনন্ত আশীর্বাদ ভোগ করে; সূচনাকাল থেকে অন্তিম সময় পর্যন্ত তারা ঈশ্বরের অনুগ্রহ ভোগ করবে, যার মধ্যে রয়েছে সেই দুঃখকষ্ট যা তাদের আমাকে স্বীকার করার আগে ও পরে ভোগ করতে হয়েছে, এবং যে আলোকপ্রাপ্তি ও প্রদীপ্তি তারা আমাকে স্বীকার করার পর লাভ করেছে। এখন থেকে, তাদের আশীর্বাদ লাভ করা শুরু হবে—অর্থাৎ, তাদেরকেই আমি সম্পূর্ণভাবে উদ্ধার করছি। এটিই আমার মহৎ কর্মের সম্পূর্ণতা প্রাপ্তির স্পষ্টতম অভিব্যক্তি। তাহলে আশীর্বাদ বলতে কী বোঝায়? তোমাদের প্রশ্ন করা যাক: তোমরা সবথেকে বেশি কী করতে চাও? তোমরা সর্বাধিক ঘৃণা করো কাকে? কোন বস্তুটি সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে তোমরা সর্বাধিক আশাবাদী? অতীতে তোমরা বেদনা ও দুর্দশার পথ পার হয়ে এসেছ, সে সবই ছিল আমাকে অর্জন করার স্বার্থে, এবং তোমাদের জীবন যাতে বৃদ্ধি পেতে পারে সেই উদ্দেশ্যে; সে সকলই অনুগ্রহের অংশ বিশেষ। “আশীর্বাদ”-এর অর্থ হল, যে সমস্ত বস্তুকে তোমরা ঘৃণা করো সেগুলি ভবিষ্যতে তোমাদের কাছে আর থাকবে না, অর্থাৎ সেই বস্তুগুলি তোমাদের বাস্তব জীবনে আর উপস্থিত থাকবে না; তোমাদের চোখের সামনেই সেগুলিকে সম্পূর্ণভাবে অপসারণ করা হবে। পরিবার, কাজ, স্বামী-স্ত্রী, সন্তান, বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন, এমনকী দৈনিক তিন বেলার যে আহারকে তোমরা প্রতিদিন ঘৃণা করো, সেগুলি সবই অপসারিত হয়ে যাবে। (এর অর্থ সময়ের বন্ধনে আবদ্ধ না থাকা, এবং দেহ থেকে সম্পূর্ণভাবে মুক্ত হওয়া। শুধুমাত্র তোমার সন্তুষ্ট আত্মার পক্ষেই তোমার দেহকে রক্ষা করা সম্ভব, কিন্তু এই অবস্থাটি তোমার দেহের ইঙ্গিতবাহী, দেহের উপাদানের নয়। তুমি সম্পূর্ণভাবে মুক্ত ও তুরীয় অবস্থায় পৌঁছবে। জগৎসৃষ্টির পর থেকে ঈশ্বরের দ্বারা প্রকাশিত আলৌকিক ঘটনাসমূহের মধ্যে এটাই শ্রেষ্ঠ ও স্পষ্টতম।) যাবতীয় পার্থিব ধূলিকণা তোমাদের দেহ থেকে অপসারিত হবে, এবং সম্পূর্ণ অর্থে তোমরা এমন পবিত্র ও অকলুষিত আধ্যাত্মিক দেহে রূপান্তরিত হবে, যা সমগ্র বিশ্বজগৎ জুড়ে এবং জগতের শেষতম প্রান্ত পর্যন্ত ভ্রমণ করতে সমর্থ হবে। সেই সময় থেকে স্নান ও অঙ্গমার্জনার মতো বিরক্তিকর কাজগুলির হাত থেকেও তোমরা মুক্তি পাবে, এবং তোমরা শুধু পরিপূর্ণভাবে আনন্দ উপভোগ করবে। সেই সময় থেকে তোমাদের আর বিবাহের বিষয়ে চিন্তা করতে হবে না (কারণ আমি একটি যুগের অবসান ঘটাচ্ছি, জগৎ সৃষ্টি করছি না), এবং মহিলাদের পক্ষে অত্যন্ত কষ্টকর যে প্রসব-বেদনা, তার আর কোনও অস্তিত্ব থাকবে না। ভবিষ্যতে তোমাদের আর কাজ করতে বা শ্রম দিতেও হবে না। আমার প্রেমময় আলিঙ্গনে তোমরা নিজেদের সম্পূর্ণভাবে নিমগ্ন করবে, আমি যে আশীর্বাদ তোমাদের উপর বর্ষণ করেছি, তাকে উপভোগ করবে। এটিই হল চূড়ান্ত বিষয়। তোমরা যখন এই আশীর্বাদগুলি উপভোগ করবে, তখন অনুগ্রহ তোমাদের অনুসরণ করে যাবে। আমি তোমাদের জন্য যা কিছু—অর্থাৎ গোটা জগতের যে সমস্ত বিরল ও মহামূল্য সম্পদ—প্রস্তুত করেছি, সেগুলি তোমাদের হাতে অর্পণ করা হবে। এই মুহূর্তে এ সমস্ত বিষয় ধারণায় আনা বা কল্পনা করা তোমাদের পক্ষে সম্ভব নয়, এবং অতীতেও কেউ এগুলি ভোগ করেনি। এই আশীর্বাদগুলি যখন তোমাদের কাছে আসবে, তখন তোমরা সীমাহীন পরমানন্দ লাভ করবে—কিন্তু ভুলে যেও না যে এই সকল কিছুরই হেতু আমার ক্ষমতা, আমার কর্ম, আমার ন্যায়পরায়ণতা এবং, অধিকতররূপে, আমার মহিমা। (যাদের প্রতি আমি অনুগ্রহপরায়ণ হতে চাইব, তাদের প্রতিই আমি অনুগ্রহপরায়ণ হব, এবং যাদের প্রতি আমি ক্ষমাশীল হতে চাইব, তাদের প্রতিই আমি ক্ষমাশীল হব।) সেই সময়ে তোমাদের পিতামাতার কোনও অস্তিত্ব থাকবে না, এবং রক্তের সম্পর্কের কোনও আত্মীয়ও থাকবে না। আমার প্রিয়ভাজন সন্তানরা, তোমরা সকলেই আমার ভালোবাসার পাত্র। সেই সময় থেকে, তোমাদের নিপীড়ন করার স্পর্ধা কেউই দেখাবে না। সেই সময়কালটিই হবে তোমাদের প্রাপ্তবয়স্ক হয়ে ওঠার সময়, এবং সেই সময়েই তোমরা লৌহমুষ্টিতে দেশগুলিকে শাসনও করবে! আমার প্রিয়ভাজন সন্তানদের পথে বিঘ্ন ঘটানোর স্পর্ধা কার হবে? তাদের আক্রমণ করার স্পর্ধা কার হবে? আমার প্রিয়ভাজন সন্তানদের সকলেই সম্মান করবে, কারণ পিতা অনুগ্রহ অর্জন করেছেন। যে সমস্ত বস্তু কারোর পক্ষে কোনও দিনই কল্পনা করাও সম্ভব হয়নি, সেগুলিই তোমাদের চোখের সামনে এসে উপস্থিত হবে; সেগুলি হবে সীমাহীন, অফুরান ও অনিঃশেষ। খুব দ্রুতই তোমাদের নিশ্চিতভাবেই আর রোদে ঝলসানোর বা কষ্টকর তাপপ্রবাহ সহ্য করার প্রয়োজন পড়বে না, অথবা তোমাদের শীতের কষ্টও ভোগ করতে হবে না, বা বর্ষা, তুষারপাত কিংবা বাতাসের স্পর্শও অনুভব করতে হবে না। তার কারণ আমি তোমাদের সকলকে ভালোবাসি এবং সেই জগৎ হবে সম্পূর্ণভাবে আমার ভালোবাসারই জগৎ। তোমরা যা চাইবে, সেই সমস্ত কিছুই আমি তোমাদের দেব এবং তোমাদের যা-যা প্রয়োজন হবে, সেই সমস্ত কিছুই আমি তোমাদের জন্য প্রস্তুত করে তুলব। আমি যে ন্যায়পরায়ণ নই, এমনতর দাবি করার স্পর্ধা কে দেখায়? তোমাকে আমি অবিলম্বে হত্যা করব, কারণ আগেই বলেছি যে (মন্দ জনেদের বিরুদ্ধে) আমার ক্রোধ অনন্ত কাল স্থায়ী হবে, এবং আমি বিন্দুমাত্র নমনীয় হব না। তবে (আমার প্রিয়ভাজনদের সন্তানদের প্রতি) আমার ভালোবাসাও চিরস্থায়ী হবে; তা আমি বিন্দুমাত্রও দমিত রাখব না।

আজ যে মানুষরা আমার বাক্যগুলি বিচার হিসেবে শুনছে, তারা সঠিক অবস্থায় নেই। কিন্তু যতক্ষণে তা তারা বুঝতে পারবে, ততদিনে পবিত্র আত্মা তাদের পরিত্যাগ করে চলে যাবেন। সমগ্র বিশ্বজগতে তোমাদের মধ্য থেকেই প্রথমজাত সন্তানদের মনোনীত করা হয়েছে, অন্যদিকে এই সন্তানরা ও প্রজারা তোমাদের একটি ক্ষুদ্র অংশ মাত্র। আমি জোর দিয়েছি সমগ্র বিশ্বজগতের উপর, যার অর্থ, সন্তানদের ও প্রজাদের মনোনীত করা হয়েছে বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে। তোমরা কি এ কথা বুঝতে পারছ? প্রথমজাত সন্তানরা যাতে দ্রুত বেড়ে ওঠে এবং ওই বিদেশিদের নেতৃত্ব দিতে যায়, সে বিষয়ের উপর আমি কেন জোর দিয়ে চলেছি? আমার বাক্যগুলির প্রকৃত অর্থ কি তোমাদের বোধগম্য হচ্ছে? তার কারণ, চিন হল এমন এক দেশ যাকে আমি অভিশাপ দিয়েছি; এই দেশটি আমাকে সবচেয়ে বেশি উৎপীড়ন করেছে, এবং এটিকেই আমি সর্বাধিক ঘৃণা করি। তোমাদের অবশ্যই জানা উচিত যে আমার প্রথমজাত সন্তানরা ও আমি স্বর্গ থেকে এসেছি এবং আমরা বিশ্বজনীন মানুষ; আমরা কোনও একটি বিশেষ দেশের লোক নই। মনুষ্যসুলভ ধারণাগুলিকে আঁকড়ে থাকা বন্ধ করো! তার কারণ, তোমাদের সামনে আমি আমার ছবি প্রকাশ করেছি। সমস্ত কিছুই আমার উপর নির্ভরশীল। তোমরা কি আমার বাক্য মনে রাখতে পারবে? কেন আমি এমন বলছি যে তোমাদের মধ্যে মানুষের সংখ্যা ক্রমশ আরও কমে আসছে, এবং জনগণ ক্রমশ আরও পরিমার্জিত হয়ে উঠছে? তার কারণ আমার পরিত্রাণ ক্রমশ বিশ্বজগতের দিকে প্রসারিত হয়ে উঠছে। যাদের বহিষ্কার করা হয়েছে, যারা আমার নাম স্বীকার করেছে, তারা প্রথমজাত সন্তানদের ত্রুটিমুক্ত করে তোলার স্বার্থে নিজেদের সেবায় নিয়োজিত করেছে। তোমরা কি বুঝতে পারছ? কেন আমি এমনটা বলছি যে তারাই আমার সন্তানদের সেবায় নিজেদের নিয়োজিত করেছে? এবার তোমরা প্রকৃতই তা বুঝতে পারছ, তা-ই নয় কি? সংখ্যাটি প্রকৃতপক্ষেই খুব কম; তারা সংখ্যায় নিঃসন্দেহে অল্প। কিন্তু সেই সমস্ত মানুষরা আমাদের সন্তানদের কারণে নিঃসন্দেহে লাভবান হয়েছে এবং আমার অনুগ্রহও অনেকাংশেই ভোগ করেছে—এবং সেই কারণেই আমি বলেছি যে আমি মানবজাতিকে এই শেষবারের মতো উদ্ধার করছি! এবার আমার বাক্যগুলির প্রকৃত অর্থ তোমাদের জানা! যে আমাকে প্রতিরোধ করবে, তাকে আমি কঠোর শাস্তি দেব, আর যে আমার পক্ষে দাঁড়াবে, তার প্রতি আমি সদয় হব। তার কারণ, সেই সূচনাকাল থেকে, আমি সব সময়েই মহিমান্বিত ও ন্যায়পরায়ণ ঈশ্বরের ভূমিকা পালন করে এসেছি, এবং তোমাদের সামনে সমস্তই প্রকাশিত হ বে। আমি কাজ করি ক্ষিপ্র গতিতে ও বিচিত্র পদ্ধতিতে, এবং খুব দ্রুতই মানুষের পক্ষে অকল্পনীয় বিভিন্ন বিস্ময়কর ঘটনাবলী ঘটবে। আমি বলতে চাইছি যে, তা ঘটবে অবিলম্বে এবং খুব দ্রুতই। তোমরা কি বুঝতে পারছ? অবিলম্বে জীবনে প্রবেশের পথ সন্ধান করো! আমার প্রিয়ভাজন সন্তানরা, এখনে সমস্ত কিছু তোমাদের জন্যই এখানে সমস্ত কিছুই রয়েছে এবং সমস্ত কিছুর অস্তিত্ব বর্তমান তোমাদেরই স্বার্থে।

পূর্ববর্তী: অধ্যায় ৮৩

পরবর্তী: অধ্যায় ৮৫

প্রতিদিন আমাদের কাছে 24 ঘণ্টা বা 1440 মিনিট সময় থাকে। আপনি কি ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভের জন্য তাঁর বাক্য শিখতে 10 মিনিট সময় দিতে ইচ্ছুক? শিখতে আমাদের ফেলোশিপে যোগ দিন। কোন ফি লাগবে না।👇

সম্পর্কিত তথ্য

ঈশ্বরের সঙ্গে সহজ সম্পর্ক স্থাপন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

যে পথে মানুষ ঈশ্বরকে বিশ্বাস করে, ভালোবাসে এবং ঈশ্বরের আস্থাভাজন হয়ে ওঠে, সেই পথটি হল নিজের হৃদয়ে ঈশ্বরের পরম শক্তিকে স্থান দিয়ে তাঁর...

রাজ্যের যুগই হল বাক্যের যুগ

রাজ্যের যুগে, যে পদ্ধতিতে তিনি কাজ করেন তা পরিবর্তনের উদ্দেশ্যে, এবং সমগ্র যুগের কাজ সম্পাদন করার জন্য, ঈশ্বর নতুন যুগের সূচনা করতে বাক্যের...

সেটিংস

  • লেখা
  • থিমগুলি

ঘন রং

থিমগুলি

ফন্টগুলি

ফন্ট সাইজ

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

পৃষ্ঠার প্রস্থ

বিষয়বস্তু

অনুসন্ধান করুন

  • এই লেখাটি অনুসন্ধান করুন
  • এই বইটি অনুসন্ধান করুন

Messenger-এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন