অধ্যায় ৭১

তোমাদের সকলের কাছে আমি আমার সকল কিছুর প্রকাশ ঘটিয়েছি, কিন্তু কেন তোমরা তোমাদের হৃদয় ও আত্মার সামগ্রিকতা দিয়ে আমার বাক্যগুলিকে বিবেচনা করতে পারো না? আমার বাক্যগুলিকে কেন অর্থহীন মনে করো? আমি যা বলি তা কি ভুল? আমার বাক্যগুলি কি তোমাদের দুর্বল জায়গাগুলিতে আঘাত দিয়েছে? তোমরা ক্রমাগত কালবিলম্ব ও দ্বিধা করে যাচ্ছ। এইরূপ আচরণ কেন করছ? আমি কি স্পষ্টভাবে কথা বলিনি? আমি কতবার বলেছি আমার বাক্যগুলিকে সযত্নে বিবেচনা করতে হবে, এবং সেগুলির প্রতি নিবিড় মনোযোগ দিতে হবে। তোমাদের মধ্যে কি কেউ অনুগত ও সমর্পিত সন্তান? আমার বাক্যগুলি কি তবে বৃথা গেছে? সেগুলির কোনো প্রভাবই কি পড়েনি? তোমাদের মধ্যে ক’জন আমার ইচ্ছার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ ভাবে চলতে পারো? এমনকি যদি এক মুহূর্তের জন্যও তুমি কথা না মেনে চল তাহলে তুমি ব্যভিচারী ও লাগামছাড়া হয়ে পড়বে। কীভাবে আচরণ করতে হবে ও কীভাবে কথা বলতে হবে তা যদি আমি স্পষ্ট ভাবে বলে নাও দিই তার মানে কি এই যে এ নিয়ে মনের গভীরে তোমার কোনো ধারণা থাকবে না? আমি তোমাকে বলছি! যে অবাধ্য, যে নিজেকে সমর্পণ করে না, এবং যে মূর্খের মতো বিশ্বাস করে, সেই ক্ষতির সম্মুখীন হয়! আমি যা বলি তার প্রতি যে সমস্ত মানুষ মনোযোগ দেয় না এবং তার খুঁটিনাটিগুলো উপলব্ধি করে না তারা আমার অভিপ্রায়ের তল করতে পারবে না, বা আমাকে সেবা করতেও সক্ষম হবে না। এই ধরনের মানুষদের আমি মোকাবিলা করব, এবং তারা আমার বিচারের সম্মুখীন হবে। এই খুঁটিনাটিগুলোকে উপলব্ধি না করাটা চরম দুঃসাহসের পরিচয়, এবং সেইসঙ্গে তা ইচ্ছাকৃত হঠকারিতা; এই ধরনের মানুষকে আমি তাই ঘৃণা করি, এবং আমি এদের প্রতি নমনীয় হব না। তাদের প্রতি আমি কোনো করুণাও দেখাব না; আমি শুধু তাদের আমার মহিমা ও বিচার প্রদর্শন করব। দেখো, এখনো আমার সঙ্গে প্রতারণা করার সাহস তোমার হয় কিনা। আমিই সেই ঈশ্বর যিনি মানুষের হৃদয়ের অন্তঃস্থল পরীক্ষা করে দেখেন। এই বিষয়টি সকলের কাছে পরিষ্কার থাকা উচিত, নাহলে তারা অমনোযোগী হয়ে কাজ করবে এবং আমার সঙ্গে দায়সারা আচরণ করবে। এই কারণেই কিছু কিছু মানুষ আমার দ্বারা অনিচ্ছাকৃত ভাবে ধ্বংস হয়ে যায়। আমি আগেই বলেছি যে, কারো সঙ্গেই আমি অবিচার করব না, আমি কোনো অন্যায় করি না, এবং, আমার হস্তের প্রাজ্ঞ আয়োজন অনুযায়ী আমার সমস্ত কার্য সাধিত হয়।

আমাকে যারা প্রকৃত ভালোবাসে না তাদের উপর আমার বিচারের খাঁড়া নেমে এসেছে। ঠিক এই মুহূর্তেই স্পষ্ট হয়ে গেছে যে আমি কাদের পূর্ব নির্ধারণ ও নির্বাচন করেছি, এবং কাদের বহিষ্কার করতে হবে। এগুলি একে একে সব প্রকাশিত হবে, এবং কোনোকিছুই প্রচ্ছন্ন রইবে না। সকল মানুষ, ঘটনাবলী এবং বস্তুসমূহ আমার বাক্যগুলিকে পূর্ণতা দেওয়ার জন্য বিরাজ করে, এবং সকলেই আমার মুখনিঃসৃত বাক্যকে সত্য করে তোলার জন্য ব্যাপৃত থাকে। এই মহাবিশ্ব ও পৃথিবীর শেষ প্রান্তকে আমি একা হাতে নিয়ন্ত্রণ করি। যে আমাকে অমান্য করার সাহস দেখায় বা আমার কার্য পালন অস্বীকার করে, আমি তাকে সংহার করব, এবং সেই ব্যক্তিকে মৃতস্থানে নিমজ্জিত করব ও তার অস্তিত্বের অবসান ঘটাব। আমার সমস্ত বাক্যই সঙ্গত ও যথাযথ, এবং সেগুলির মধ্যে কোনো কলুষ নেই। আমার কথা বলার ধরনের সঙ্গে তোমাদের কথার ধরনে কি কোনো মিল রয়েছে? তোমাদের কথা বড়ই বিরক্তিকর রকমের দীর্ঘ; তোমাদের কথার কোনো অর্থ নেই, এবং তোমরা নিজেদের স্পষ্টভাবে ব্যক্ত করো না – তবুও, তারপরও, তোমরা ভাবো তোমরা কিছু বস্তু অর্জন করেছে, এবং তা তোমরা প্রায় করেই ফেলেছ। কী নির্বোধ এবং অজ্ঞ তোমরা!

আমার বাক্যগুলি নিরন্তর, এবং সমস্ত দিক থেকে বিষয়গুলির প্রতি অঙ্গুলি নির্দেশ করছে। এমন কি হতে পারে যে তুমি সেটা এখনও বুঝতে পারছ না? তুমি কি এখনো উপলব্ধি করতে পারছ না? আমায় হতাশ করাই কি তোমার অভিপ্রায়? মনে উদ্যম আনো, সাহস সঞ্চার করো। আমাকে যারা ভালোবাসে তাদের একজনের সঙ্গেও আমি অন্যায্য আচরণ করি না। মানবহৃদয়ের গভীরতম অন্তঃস্থল আমি পরীক্ষা করে দেখি, এবং সকল মানুষের হৃদয়ে কী রয়েছে আমি তা সব জানি। সকলকিছুই একে একে প্রকাশিত হবে, এবং সেগুলি সবই আমার দ্বারা পরীক্ষিত হবে। আমাকে যারা প্রকৃতই ভালোবাসে তাদের একজনকেও আমি কখনোই এড়িয়ে যাব না; তারা সকলেই আমার আশীর্বাদের গ্রহীতা, এবং তারা প্রথমজাত পুত্রদের গোষ্ঠী যাদের রাজা হওয়ার জন্য পূর্বনির্ধারণ করে রেখেছি। আর যারা আমাকে প্রকৃত ভালোবাসে না, তারা নিজেরাই নিজেদের প্রতারণার লক্ষ্যবস্তু, এবং তারা দুর্ভাগ্যের শিকার হবে; আর এটাও আমারই দ্বারা পূর্ব নির্ধারিত। চিন্তা কোরো না; একে একে, আমি তাদের অনাবৃত করব। আমি অনেক আগে থেকেই এই কাজের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছি, এবং ইতিমধ্যেই এই কাজ করা শুরু করে দিয়েছি। সুশৃঙ্খল ভাবে এই কার্য সমাধা হচ্ছে; এই কাজে কোনো বিশৃঙ্খলা নেই। কাকে নির্বাচন করা হবে এবং কাকে বহিষ্কার করা হবে, সে বিষয়ে আমি ইতিমধ্যেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছি। তোমাদের চাক্ষুষ করার জন্য, একে একে, তাদের সকলকে অনাবৃত করা হবে। এই সময়ের মধ্যে, তোমরা দেখতে পাবে যে আমার হস্ত কী কার্য সাধন করছে। সকল মানুষ দেখবে যে আমায় ন্যায়পরায়ণতা ও মহিমা কোনো অন্যায় ও কারো তরফে কোনো প্রতিরোধের অনুমোদন দেয় না, এবং যে ক্ষুব্ধ করবে, করবে সেই কঠোর শাস্তি পাবে।

আমিই সেইজন যিনি নিরন্তর প্রত্যেকের হৃদয়ের গহীনতম অন্তঃস্থল পরীক্ষা করে দেখেন। আমাকে শুধু বাইরে থেকে দেখোনা। অন্ধ মনুষ্যগণ! এই বাক্যগুলি তোমাদের এত স্পষ্ট ভাবে বলেছি তা তোমরা শোন না, এবং তোমরা আমাকে – স্বয়ং সম্পূর্ণ ঈশ্বরকে – আদৌ বিশ্বাস করো না। যারা আমার সঙ্গে প্রতারণা করার সাহস করবে, বা আমার কাছ থেকে কিছু গোপন করবে, তাদের অবশ্যই আমি সহ্য করব না।

আমার উচ্চারণগুলোর প্রত্যেকটি কি তোমার মনে আছে? “আমাকে দেখা আর অনন্ত থেকে অনন্তে প্রচ্ছন্ন প্রতিটি রহস্যকে দেখা সমান”। তুমি কি এই উক্তিটিকে গভীরভাবে বিবেচনা করে দেখেছ? আমিই ঈশ্বর, এবং তোমাদের চাক্ষুষ করার জন্য আমার রহস্যগুলি প্রদর্শিত হয়েছে। তোমরা কি সেগুলি দেখোনি? তোমরা আমার প্রতি কেন মনোযোগ দাও না? তোমার মনে যে অনিশ্চিত ঈশ্বর রয়েছেন, কেন তার উপাসনা করো? আমি – একমাত্র প্রকৃত ঈশ্বর – কীভাবে কোনো ভুল করতে পারি? এটা তোমাদের মাথায় ঢুকিয়ে নাও! এ ব্যাপারে নিশ্চিত হও! আমার প্রতিটি বাক্য ও কার্য, আমার প্রতিটিও কর্ম ও প্রতিটি পদক্ষেপ, আমার আমার হাসা, আমার খাওয়া, আমার পোশাক পরা, আমার সবকিছুই স্বয়ং ঈশ্বর কর্তৃক পরিচালিত। তোমরা আমাকে বিচার করো: এমনটা কি হতে পারে যে আমার আগমনের পূর্বে ইতিমধ্যেই তোমরা ঈশ্বরকে চাক্ষুষ করে ফেলেছ? তেমন যদি না হয়ে থাকে, তাহলে কেন তোমরা ক্রমাগত আমার এবং তোমার ঈশ্বরের মধ্যে মানসিক তুলনা চালিয়ে যাও? এটা সম্পূর্ণভাবেই মানুষের পূর্বধারণার ফসল! আমার পদক্ষেপ ও আচরণ তোমার কল্পনার সঙ্গে মেলে না, মেলে কি? আমার পদক্ষেপ ও আচরণ সঠিক কিনা সেই নিয়ে মত প্রকাশ করতে কোনো ব্যক্তিকেই আমি অনুমতি দেব না। আমিই একমাত্র প্রকৃত ঈশ্বর, এবং এটাই অপরিবর্তনীয়, অকাট্য সত্য! নিজের প্রতারণার শিকার হয়ো না। আমার বাক্যগুলি অত্যন্ত স্পষ্টভাবে এই বিষয়টিকে তুলে ধরেছে। আমার মধ্যে কণামাত্রও মানবতা নেই; আমার মধ্যে সবকিছুই স্বয়ং ঈশ্বর, তোমাদের কাছে সম্পূর্ণরূপে প্রকাশিত, কোনো কিছুই প্রচ্ছন্ন নেই!

পূর্ববর্তী: অধ্যায় ৭০

পরবর্তী: অধ্যায় ৭২

প্রতিদিন আমাদের কাছে 24 ঘণ্টা বা 1440 মিনিট সময় থাকে। আপনি কি ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভের জন্য তাঁর বাক্য শিখতে 10 মিনিট সময় দিতে ইচ্ছুক? শিখতে আমাদের ফেলোশিপে যোগ দিন। কোন ফি লাগবে না।👇

সম্পর্কিত তথ্য

ঈশ্বর হলেন মানুষের জীবনের উৎস

ক্রন্দনরত অবস্থায় এই জগতে ভূমিষ্ঠ হবার সময় থেকেই তুমি তোমার কর্তব্য পালন করা শুরু করো। ঈশ্বরের পরিকল্পনা ও তাঁর নির্ধারিত নিয়তি অনুসারে...

একটি সাধারণ আধ্যাত্মিক জীবন মানুষকে সঠিক পথে নিয়ে যায়

তোমরা ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাসের পথে খুব সামান্য অংশই হেঁটেছো, এবং তোমরা এখনও সঠিক পথে প্রবেশ করতে পারোনি, তাই তোমরা এখনও ঈশ্বরের নির্ধারিত...

সেটিংস

  • লেখা
  • থিমগুলি

ঘন রং

থিমগুলি

ফন্টগুলি

ফন্ট সাইজ

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

পৃষ্ঠার প্রস্থ

বিষয়বস্তু

অনুসন্ধান করুন

  • এই লেখাটি অনুসন্ধান করুন
  • এই বইটি অনুসন্ধান করুন

Messenger-এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন