অধ্যায় ২৯

তুমি কি জানো যে হাতে আর সময় বেশি নেই? তাই, এই স্বল্পমেয়াদে, তোমাকে আমার উপর নির্ভর করতেই হবে, এবং তোমার কাছ থেকে সেই সকল বস্তু সরিয়ে ফেলতে হবে যা আমার স্বভাবের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়: অজ্ঞতা, প্রতিক্রিয়ায় মন্থরতা, অস্পষ্ট চিন্তাভাবনা, কোমলচিত্ত, একটি দুর্বল ইচ্ছাশক্তির অধিকারী হওয়া, অযৌক্তিকতা, অত্যধিক আবেগ, দ্বিধা এবং বিচক্ষণতার অভাব। যত শীঘ্র সম্ভব এগুলিকে পরিত্যাগ করতে হবে। আমি সর্বশক্তিমান ঈশ্বর! যতক্ষণ পর্যন্ত তুমি আমার সঙ্গে সহযোগিতা করতে ইচ্ছুক রয়েছ, ততক্ষণ আমি সেই সমস্ত কিছুর নিরাময় করতে পারি যা তোমাকে পীড়া দেয়। আমি সেই ঈশ্বর যিনি মানুষের অন্তরের অন্তঃস্থল তলিয়ে দেখেন; আমি তোমার সমস্ত ব্যাধি ও কোথায় তোমার ত্রুটি রয়েছে সে সবকিছুই জানি। এগুলিই হল সেই বিষয় যা জীবনে তোমার অগ্রগতিকে রোধ করছে, এবং এগুলিকে শীঘ্র পরিত্যাগ করতে হবে। নাহলে, আমার ইচ্ছা তোমার উপর কার্যকর হতে পারবে না। তোমার যে সকল বিষয়কে আমি আলোকিত করি, সেগুলি পরিত্যাগের জন্য আমার উপর নির্ভর করো, সর্বদা আমার পাশে বাস করো, আমার নিকটে থাকো এবং আমার অনুরূপ কর্ম ও আচরণ করো। যে বিষয়গুলি তুমি বোঝো না তা নিয়ে আমার সঙ্গে আরো ঘন ঘন আলোচনা করো, আমি তোমাকে পথনির্দেশ দেব, যাতে তুমি সামনে এগিয়ে যেতে পারো। যদি তুমি নিশ্চিত না হও, তাহলে কোনো হঠকারী আচরণ কোরো না, বরং আমার সময়ের জন্য অপেক্ষা কোরো। একটা স্থিতিশীল মেজাজ বজায় রেখো এবং নিজের আবেগকে ঘন ঘন পরিবর্তনশীল হতে দিয়ো না, তোমার এমন একটি হৃদয় থাকতে হবে যা সর্বদা আমার প্রতি সম্মানশীল হবে। তুমি আমার সম্মুখে এবং আমার চোখের আড়ালে যা করো, তা যেন সর্বদা আমার ইচ্ছার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হয়। আমার হয়ে কারো প্রতি ক্ষমাশীল হয়ো না, সে তোমার স্বামীই হোক বা পরিবার; এটা গ্রহণযোগ্য নয়, সে তারা যতই ভালো হোক না কেন। তোমাকে অবশ্যই সত্যের ভিত্তিতে তোমাকে পদক্ষেপ নিতে হবে। তুমি যদি আমাকে ভালোবাসো তাহলে আমি তোমাকে প্রভূত আশীর্বাদ দেব। যে প্রতিরোধ করে, তাকে আমি সহ্য করব না। যাদের আমি ভালোবাসি, তাদের ভালোবাসো, যাদের আমি ঘৃণা করি, তাদের ঘৃণা করো। কোনো মানুষ, ঘটনাবলি ও বস্তুসমূহের প্রতি কোনো নজর দিয়ো না। নিজের আত্মা দিয়ে দেখো এবং যে সকল মানুষকে আমি ব্যবহার করি তাদের স্পষ্টভাবে দেখো, আধ্যাত্মিক ব্যক্তিদের সঙ্গে আরো ঘন ঘন যোগাযোগ করো। অজ্ঞ হয়ো না—তোমাকে পার্থক্য নিরূপণ করতেই হবে। গম সর্বদা গমই থাকবে এবং আগাছা কখনোই গমে পরিণত হবে না—তোমাকে বিভিন্ন ধরনের মানুষদের চিনতে হবে। তোমার কথায় তোমাকে বিশেষভাবে সতর্ক থাকতে হবে এবং আমার আমার অভিপ্রায়ের পথেই তোমাকে চলতে হবে। এই বাক্যগুলিকে সযত্নে বিবেচনা করো। তোমাকে এই মুহূর্তে তোমার বিদ্রোহী স্বভাবকে পরিত্যাগ করে আমার ব্যবহারের উপযুক্ত হতে হবে যাতে তুমি আমার হৃদয়কে পরিতৃপ্ত করতে পারো।

পূর্ববর্তী: অধ্যায় ২৮

পরবর্তী: অধ্যায় ৩০

প্রতিদিন আমাদের কাছে 24 ঘণ্টা বা 1440 মিনিট সময় থাকে। আপনি কি ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভের জন্য তাঁর বাক্য শিখতে 10 মিনিট সময় দিতে ইচ্ছুক? শিখতে আমাদের ফেলোশিপে যোগ দিন। কোন ফি লাগবে না।👇

সম্পর্কিত তথ্য

প্রার্থনার অনুশীলন বিষয়ে

তোমরা তোমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রার্থনার উপর জোর দাও না। মানুষ প্রার্থনার বিষয়টিকে অবহেলা করে। প্রার্থনা সাধারণত করা হয়ে থাকে দায়সারাভাবে...

রাজ্যের যুগই হল বাক্যের যুগ

রাজ্যের যুগে, যে পদ্ধতিতে তিনি কাজ করেন তা পরিবর্তনের উদ্দেশ্যে, এবং সমগ্র যুগের কাজ সম্পাদন করার জন্য, ঈশ্বর নতুন যুগের সূচনা করতে বাক্যের...

সেটিংস

  • লেখা
  • থিমগুলি

ঘন রং

থিমগুলি

ফন্টগুলি

ফন্ট সাইজ

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

পৃষ্ঠার প্রস্থ

বিষয়বস্তু

অনুসন্ধান করুন

  • এই লেখাটি অনুসন্ধান করুন
  • এই বইটি অনুসন্ধান করুন

Messenger-এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন