ঈশ্বরের প্রতিদিনের বাক্য: মানবজাতির দুর্নীতি উদ্ঘাটিত করা | উদ্ধৃতি 306

আমি অনেক বাক্য ব্যক্ত করেছি, এবং আমার ইচ্ছা ও আমার স্বভাবও ব্যক্ত করেছি, তবুও মানুষ এখনও আমাকে জানতে বা আমাকে বিশ্বাস করতে অক্ষম। অথবা বলা যেতে পারে, তারা এখনও আমার কথা মান্য করতে অক্ষম। যারা বাইবেল অনুসারে, আইন অনুসারে বসবাস করে, ক্রুশে বসবাস করে, যারা শাস্ত্রের মতবাদ অনুসারে জীবনযাপন করে, যারা আমার বর্তমানের কাজের মধ্যে বাঁচে—তাদের মধ্যে কারা প্রকৃতই আমার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ? তোমরা কেবল আশীর্বাদ এবং পুরস্কার গ্রহণের কথা চিন্তা করো, কিন্তু কীভাবে প্রকৃত অর্থে আমার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হয়ে উঠবে বা কীভাবে আমার বিরোধিতা করা থেকে নিজেকে বিরত রাখবে সে কথা চিন্তা করো না। আমি তোমাদের ব্যাপারে খুবই হতাশ, কারণ আমি তোমাদের অনেক দিলেও তোমাদের কাছ থেকে সামান্যই অর্জন করতে পেরেছি। তোমাদের প্রতারণা, অহংকার, লোভ, অতিরিক্ত কামনা, বিশ্বাসঘাতকতা, অবাধ্যতা—এগুলির মধ্যে কোনটি আমার দৃষ্টি এড়িয়ে যেতে পারে? তোমরা আমার অযত্ন করো, আমাকে বোকা বানাও, অপমান করো, তোষামোদ করো, তুমি আমার কাছে দাবী করে আদায় করো—এই ধরনের অপরাধ প্রবণতা কীভাবে আমার দণ্ড এড়িয়ে যেতে পারে? এই সমস্ত মন্দ কর্ম আমার বিরুদ্ধে তোমাদের শত্রুতার, এবং তোমাদের আমার অসঙ্গতিপূর্ণ হওয়ার প্রমাণ। তোমরা প্রত্যেকেই নিজেকে আমার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ বলে বিশ্বাস করো, কিন্তু যদি তাই হতো তাহলে এই সব অকাট্য প্রমাণ কাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে? তোমরা নিজেদের আমার প্রতি সর্বাধিক আন্তরিকতা এবং আনুগত্যের অধিকারী বলে বিশ্বাস করো। তোমরা মনে করো যে তোমরা কত সহৃদয়, কত সহানুভূতিশীল এবং তোমরা আমার জন্য অনেক কিছু উৎসর্গ করেছ। তোমরা মনে করো যে তোমরা আমার জন্য প্রয়োজনের অতিরিক্ত করেছ। কিন্তু তোমরা কি কখনও নিজেদের কৃতকর্মকে বিশ্লেষণ করে দেখেছ? আমি বলি তোমরা আসলে প্রচণ্ড উদ্ধত, প্রচণ্ড লোভী, খুবই বেপরোয়া মানুষ; যে সমস্ত কৌশলে তোমরা আমাকে বোকা বানাও সেগুলি অত্যন্ত চাতুর্যপূর্ণ এবং তোমাদের অত্যন্ত নিকৃষ্ট কিছু উদ্দেশ্য ও নিকৃষ্ট মানের পদ্ধতি রয়েছে। তোমাদের আনুগত্য খুবই দুর্বল, তোমাদের আন্তরিকতা অকিঞ্চিৎকর, এবং তোমাদের বিবেকের অভাব আরও বেশি। তোমাদের হৃদয় অত্যন্ত বিদ্বেষপূর্ণ, এবং সেই দ্বেষ থেকে কেউ রেহাই পায় না, এমন কি আমিও না। তোমরা তোমাদের সন্তানের খাতিরে, অথবা তোমাদের স্বামীর, বা তোমাদের আত্ম-রক্ষার খাতিরে আমাকে প্রবেশাধিকার থেকে বঞ্চিত করেছ। আমার প্রতি যত্নশীল হওয়ার পরিবর্তে তোমরা তোমাদের পরিবার, সন্তান, অবস্থান, ভবিষ্যৎ এবং আত্মতুষ্টি সম্পর্কে যত্নশীল। তোমরা কথা বলার বা কাজ করার সময় কখনও সেভাবে আমার কথা চিন্তা করো? শীতল দিনগুলিতে তোমাদের ভাবনা তোমাদের সন্তান, স্বামী, স্ত্রী, অথবা তোমাদের পিতামাতার প্রতি ফিরে যায়। এমনকি যন্ত্রণাদায়ক দিনগুলিতেও তোমাদের ভাবনায় আমার কোনো স্থান নেই। তুমি যখন তোমার কর্তব্য পালন কর, তখনও তুমি নিজের স্বার্থের কথা, তোমার নিজের বা পরিবারের কোনো সদস্যের ব্যক্তিগত নিরাপত্তার কথা চিন্তা করো। তুমি কি কখনো আমার জন্য কিছু করেছ? তুমি কি কখনো আমার জন্য চিন্তা করেছ? তুমি কি কখনো নিজেকে সম্পূর্ণরূপে যে কোনো মূল্যে আমার বা আমার কাজের প্রতি উৎসর্গ করেছ? তোমার আমার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হওয়ার প্রমাণ কোথায়? আমার প্রতি তোমার আনুগত্যের বাস্তবিকতা কোথায়? আমার প্রতি তোমার আজ্ঞাকারিতার সত্যতা কোথায়? কখন তোমার উদ্দেশ্য কেবলমাত্র আমার আশীর্বাদ অর্জন ছিল না? তোমরা আমাকে বোকা বানিয়ে প্রতারিত করো, তোমরা সত্যকে নিয়ে খেলা করো, সত্যের অস্তিত্ব গোপন করো এবং সত্যের সারসত্যের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করো। তোমাদের এইভাবে আমার বিরুদ্ধাচরণের ফল ভবিষ্যতে কী হতে পারে? তোমরা কেবলমাত্র এক অনিশ্চিত ঈশ্বরের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হওয়ার পথ খুঁজছ এবং নিছক এক অনির্দিষ্ট বিশ্বাসের সন্ধান করছ, তবুও তোমরা খ্রীষ্টের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হতে পারছ না। তোমাদের অপরাধের জন্য কি পাপিষ্ঠদের প্রাপ্য প্রতিফলের অনুরূপ ফল তোমাদেরও প্রাপ্য নয়? সেই সময়ে তোমরা উপলব্ধি করবে যে খ্রীষ্টের সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ কেউ-ই ক্রোধের দিন থেকে পালাতে পারে না এবং তোমরা আবিষ্কার করবে, খ্রীষ্টের বিরোধীদের উপর কি ধরণের প্রকোপ বর্ষিত হতে পারে। যখন সেই দিন আসবে তখন ঈশ্বর বিশ্বাসের এবং স্বর্গে প্রবেশ অর্জনের জন্য লালিত তোমাদের স্বপ্ন ভেঙ্গে খানখান হয়ে যাবে। যাই হোক না কেন, যারা খ্রীষ্টের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ তাদের ক্ষেত্রে এমনটা হবে না। যদিও তারা অনেক কিছু হারিয়েছে, অনেক কষ্ট সহ্য করেছে, তবুও তারা আমার মানবজাতিকে প্রদত্ত সমস্ত উত্তরাধিকার পাবে। পরিশেষে তোমরা উপলব্ধি করবে যে একমাত্র আমিই হলাম ধার্মিক ঈশ্বর, এবং আমিই এককভাবে সমগ্র মানবজাতিকে তাদের সুন্দর গন্তব্যে নিয়ে যেতে সক্ষম।

—বাক্য, খণ্ড ১, ঈশ্বরের আবির্ভাব ও তাঁর কার্য, তোমার খ্রীষ্টের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হওয়ার পথ খোঁজা উচিত

প্রতিদিন আমাদের কাছে 24 ঘণ্টা বা 1440 মিনিট সময় থাকে। আপনি কি ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভের জন্য তাঁর বাক্য শিখতে 10 মিনিট সময় দিতে ইচ্ছুক? শিখতে আমাদের ফেলোশিপে যোগ দিন। কোন ফি লাগবে না।

সম্পর্কিত তথ্য

ঈশ্বরের প্রতিদিনের বাক্য: মানবজাতির দুর্নীতি উদ্ঘাটিত করা | উদ্ধৃতি 328

তোমরা তোমাদের সমস্ত কাজে ন্যায়পরায়ণতার অনুশীলন করো কিনা এবং তোমাদের সমস্ত কাজ ঈশ্বর পর্যবেক্ষণ করেন কিনা তা জানার জন্য নিজেদের অন্তরে খুঁজে...

ঈশ্বরের প্রতিদিনের বাক্য: মানবজাতির দুর্নীতি উদ্ঘাটিত করা | উদ্ধৃতি 324

এতক্ষণে ঈশ্বর-বিশ্বাসের প্রকৃত অর্থ তোমরা সকলেই নিশ্চয় প্রণিধান করতে পেরেছো। আগে ঈশ্বরে বিশ্বাস করার অর্থ বিষয়ে আমি যা বলেছিলাম, তা ছিল...

ঈশ্বরের প্রতিদিনের বাক্য: জীবনে প্রবেশ | উদ্ধৃতি 394

ঈশ্বরে বিশ্বাসের ক্ষেত্রে মানুষের সবথেকে বড় ভুল হল যে তারা নিছক মৌখিকভাবেই তাদের বিশ্বাস জাহির করে, এবং তাদের দৈনন্দিন জীবনে ঈশ্বর পূর্ণত...

ঈশ্বরের প্রতিদিনের বাক্য: কর্মের তিনটি পর্যায় | উদ্ধৃতি 32

অন্তিম সময়ে, ঈশ্বর তাঁর বাক্য প্রকাশ করতে এসেছেন। তিনি আত্মার দৃষ্টিকোণ থেকে, মানুষের দৃষ্টিকোণ থেকে, এবং তৃতীয় ব্যক্তির দৃষ্টিকোণ থেকে...

Messenger-এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন