বিষয় গন্তব্য

গন্তব্য সংক্রান্ত বিষয়টির যখনই উল্লেখ করা হয়, তোমরা বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করো; উপরন্তু, এটি এমন একটি বিষয় যার প্রতি তোমরা বিশেষভাবে সংবেদনশীল। কিছু মানুষ একটি উত্তম গন্তব্য অর্জনের উদ্দেশ্যে মাটিতে তাদের মাথা ঠুকতে, ঈশ্বরের সামনে নতজানু হতে, সর্বদাই প্রস্তুত। তোমাদের এই আগ্রহ শব্দে প্রকাশ করার প্রয়োজন নেই, আমি সেটা এমনিতেই উপলব্ধি করতে পারি। বিষয়টা এইটুকুই, যে, তোমরা চাও না তোমাদের পার্থিবদেহ দুর্দশায় পড়ুক, এবং ভবিষ্যতে চিরস্থায়ী শাস্তি ভোগ করতে তোমরা আরোই কম ইচ্ছুক। তোমরা শুধু আরও একটু বেশি স্বাধীন ভাবে, আরও একটু সহজে জীবনযাপন করতে চাও। এবং তাই যখনই গন্তব্যের বিষয়টি উল্লেখ করা হয়, তোমরা বিশেষ বিচলিত বোধ করো, অত্যন্ত শঙ্কিত হয়ে পড়ো যে, যদি ঈশ্বরের প্রতি যথেষ্ট মনোযোগী না হও, তবে তুমি ঈশ্বরকে অসন্তুষ্ট করে তুলতে পারো, এবং সেক্ষেত্রে তোমায় তোমার প্রাপ্য প্রতিফল ভোগ করতে হবে। তোমরা তোমাদের গন্তব্যের জন্য আপোষ করতে দ্বিধা করোনি, এবং এমনকি, তোমাদের মধ্যে অনেকে যারা একসময় বিপথগামী এবং অস্থিরচিত্ত ছিল, তারা হঠাৎ বিশেষভাবে সুশীল এবং আন্তরিক হয়ে উঠেছে; তোমার এই আন্তরিক রূপ মানুষকে অত্যন্ত ভীত করে তোলে। তথাপি, তোমাদের সকলের হৃদয় “সৎ”, এবং তোমরা ক্রমাগত আমার কাছে তোমাদের হৃদয়ের গোপন বিষয়গুলি, তা ক্ষোভ, কপটতা বা ভক্তি যাই হোক না কেন, কিছুই গোপন না করে উজাড় করে দিয়েছ। সর্বোপরি, তোমরা আমার কাছে অত্যন্ত অকপটে সেই বিশেষ উপাদানগত বিষয়গুলি “স্বীকার” করেছো যেগুলি তোমাদের সত্তার গভীরে নিভৃতে রয়েছে। অবশ্যই, আমি কখনই এই জাতীয় বিষয়গুলি এড়িয়ে যাইনি, কারণ আমার কাছে সেগুলি অত্যন্ত পরিচিত হয়ে উঠেছে। ঈশ্বরের সম্মতি লাভ করার জন্য মাথার সামান্য একটি কেশ ত্যাগ করার চেয়ে তোমরা বরং চূড়ান্ত গন্তব্যলাভের জন্য আগুনের সাগরে প্রবেশ করতেও প্রস্তুত। এমন নয় যে আমি তোমাদের সঙ্গে অত্যন্ত প্রাচীনপন্থী আচরণ করছি; বিষয়টি এই যে, আমি যা কিছু কর্ম করি তার সম্মুখীন হওয়ার জন্য তোমাদের হৃদয়ে ভক্তির অত্যন্ত অভাব রয়েছে। আমি এইমাত্র যা বলেছি তা তোমরা হয়তো বুঝতে পারোনি, অতএব আমাকে একটি সহজ ব্যাখ্যা প্রদান করতে দাও: তোমাদের প্রয়োজন নেই সত্য এবং জীবনের, নেই নিজেদের পরিচালিত করার নীতির, এমনকি, আমার কষ্টসাধ্য কাজেও তোমাদের প্রয়োজন নেই, তোমরা শুধুমাত্র যা চাও তা হচ্ছে তোমাদের দৈহিক অধিকারের বস্তু—সম্পদ, পদমর্যাদা, পরিবার, বিবাহ এরকম আরো অনেক কিছু। তোমরা আমার বাক্য এবং কর্ম সম্পূর্ণরূপে প্রত্যাখ্যান করেছো, তাই আমি তোমাদের বিশ্বাসকে একটি শব্দে প্রকাশ করতে পারি: আন্তরিকতাহীন। তোমরা যে বস্তুগুলির প্রতি সম্পূর্ণরূপে নিবেদিত সেগুলি অর্জনের জন্য তোমরা যে কোনও দূরত্ব অতিক্রম করতে পারো, কিন্তু আমি লক্ষ্য করেছি যে, তোমার ঈশ্বর-বিশ্বাসের সাথে সম্পর্কিত বিষয়ের ক্ষেত্রে তোমরা এমনটা করবে না। বরং, তোমরা আপেক্ষিকভাবে নিষ্ঠাবান, এবং আপেক্ষিকভাবে আন্তরিক। এ কারণেই আমি বলি যে, যাদের অন্তরে পরম আন্তরিকতার অভাব রয়েছে, তাদের ঈশ্বর-বিশ্বাস ব্যর্থ। গুরুত্ব সহকারে চিন্তা করে দেখো—তোমাদের মধ্যে কি এমন বিস্তর ব্যর্থতা রয়েছে?

তোমার জানা উচিত যে, ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাস স্থাপনের ক্ষেত্রে সাফল্য মানুষের নিজের কর্মের ফলস্বরূপ অর্জিত হয়; যখন মানুষ সফলতা অর্জন করে না বরং পরিবর্তে ব্যর্থ হয়, সেটাও তাদের নিজের কর্মের ফলস্বরূপ হয়ে থাকে, এবং এক্ষেত্রে অন্য কোনও কারণের কোনও ভূমিকা থাকে না। আমি বিশ্বাস করি যে, তোমরা কিছু অর্জনের জন্য এমন যে কোনও কিছু করতে পারো যা ঈশ্বরে বিশ্বাস করার চেয়ে অনেক বেশি কঠিন এবং অনেক বেশি পীড়াদায়ক, এবং তোমরা এই বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করবে, এতটাই যে, সেক্ষেত্রে তুমি কোনও ত্রুটি সহ্য করতে সম্মত হবে না; এই ধরনের একাধিক বিরামহীন প্রচেষ্টায় তোমরা সবাই জীবন ভরিয়ে তুলেছ। এমনকি, যে পরিস্থিতিতে তোমরা নিজের পরিবারের কোনো সদস্যকে প্রতারণা করবে না, সেরকম পরিস্থিতিতেও তোমরা আমার দেহরূপের সাথে প্রতারণা করতে পারো। এই তোমাদের ধারাবাহিক আচরণ এবং নীতি যার দ্বারা তোমরা জীবন যাপন করো। তোমরা কি এখনও নিজেদের গন্তব্যের স্বার্থে আমাকে প্রতারিত করার জন্য একটি মিথ্যা মুখোশ পরে নেই, যাতে তোমাদের গন্তব্য নিখুঁত সুন্দর এবং তুমি ঠিক যেমনটা আকাঙ্ক্ষা করো তেমন হয়ে উঠতে পারে? আমি জানি যে তোমাদের ভক্তি এবং তোমাদের নিষ্ঠা ক্ষণস্থায়ী। এটা কি সঠিক নয় যে তোমাদের সংকল্প, এবং তোমরা যে মূল্য প্রদান করো, তা শুধুমাত্র বর্তমান মুহূর্তের জন্য, ভবিষ্যতের জন্য নয়? শুধুমাত্র একটি সুন্দর গন্তব্যকে সুরক্ষিত করার লক্ষ্যে ব্যবসায়িক মনোবৃত্তি নিয়ে তোমরা শেষ প্রচেষ্টা চালাতে চাও। সত্যের কাছে ঋণী হওয়া এড়ানোর জন্য যে তোমরা এই প্রচেষ্টা করো তা নয়; আমি যে মূল্য প্রদান করেছি তা পরিশোধ করার জন্যেও নয়। সংক্ষেপে বলতে গেলে, যা চাও তা পাওয়ার জন্য তুমি শুধুমাত্র চতুর কৌশল প্রয়োগে ইচ্ছুক, কিন্তু এজন্য প্রকাশ্য সমরে অবতীর্ণ হতে চাও না। এটাই কি তোমাদের আন্তরিক ইচ্ছা নয়? তোমরা নিজেদের ছদ্মবেশের আড়ালে রেখো না, বা গন্তব্যের বিষয়ে এতটাও চিন্তা করো না যে আহার ও নিদ্রা বিনষ্ট হয়। এটা কি সত্য নয় যে, অন্তিমে, তোমাদের পরিণতি নির্ধারিত হয়েই যাবে? তোমাদের প্রত্যেকের, উন্মুক্ত এবং সৎ হৃদয়ের সাথে, নিজের ক্ষমতার সর্বোত্তম প্রয়োগের দ্বারা দায়িত্ব পালন করা উচিত, এবং প্রয়োজনীয় মূল্য যাই হোক না কেন, তা প্রদানে প্রস্তুত থাকা উচিত। তোমরা যেমন বলেছ, যখন সেই দিন আসবে, ঈশ্বর এমন কাউকে অবহেলা করবেন না যে তাঁর জন্য কষ্ট করেছে বা তাঁর জন্য মূল্য পরিশোধ করেছে। এই ধরনের দৃঢ় প্রত্যয়ে স্থির থাকা আবশ্যক, এবং তোমাদের যথার্থভাবেই তা কখনও ভুলে যাওয়া উচিত নয়। শুধুমাত্র এই ভাবে তোমাদের জন্য আমি আমার মনকে শান্ত রাখতে সক্ষম হই। অন্যথায়, তোমরা চিরকালের জন্য সেই ধরনের মানুষ হয়ে উঠবে যাদের জন্য আমি আমার মনকে শান্ত রাখতে পারবো না, এবং চিরকালের জন্য আমার অরুচির বস্তু হয়ে উঠবে। যদি তোমরা সকলে নিজেদের বিবেককে অনুসরণ করো, এবং আমার কর্মের জন্য কোনও প্রচেষ্টা এড়িয়ে না গিয়ে, এবং আমার সুসমাচারের কর্মে সারাজীবনের শক্তি উৎসর্গ করে, আমার জন্য নিজেদের সমস্ত কিছু অর্পণ করতে পারো, সেক্ষেত্রে আমার হৃদয় কি তোমাদের জন্য প্রায়শই আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে উঠবে না? এইভাবে, আমি আমার মনকে তোমাদের বিষয়ে সম্পূর্ণরূপে শান্ত রাখতে সক্ষম হব, তাই নয় কি? এটা লজ্জাজনক যে, তোমরা যা করতে পারো তা আমার প্রত্যাশার একটি শোচনীয় রকমের ক্ষুদ্র অংশ। এই অবস্থায়, তোমরা কী করে নিজেদের আশা অনুযায়ী কিছু আমার কাছে চাইবার সাহস করতে পারো?

গন্তব্য এবং ভাগ্য তোমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ—তা নিয়ে তোমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। তোমরা বিশ্বাস করো যে, যদি বিশেষ যত্ন সহকারে কাজগুলি না করো, তাহলে গন্তব্য লাভ করতে পারবে না, অর্থাৎ তোমরা তোমাদের নিজেদের ভাগ্য নষ্ট করবে। কিন্তু এমনটা কি কখনও তোমাদের মনে হয়েছে যে, যারা শুধুমাত্র নিজেদের গন্তব্যের স্বার্থে চেষ্টা করে, তারা পণ্ডশ্রম করছে? এই সমস্ত প্রচেষ্টা আন্তরিক নয়—সেগুলি মিথ্যা এবং প্রতারণামূলক। যদি এমনটাই হয়, সেক্ষেত্রে যারা শুধুমাত্র নিজেদের গন্তব্যের স্বার্থে কাজ করে, তারা চূড়ান্ত পরাজয়ের মুখে এসে উপস্থিত হয়েছে, কারণ প্রতারণার ফলেই মানুষের ঈশ্বর বিশ্বাস ব্যর্থ হয়। আমি ইতিপূর্বে বলেছি যে আমি তোষামোদ পেতে বা প্রতারিত হতে, বা উদ্দীপনাপূর্ণ ব্যবহার পেতে পছন্দ করি না। আমার সত্য এবং আমার প্রত্যাশার মুখোমুখি হওয়ার জন্য আমি সৎ মানুষ পছন্দ করি। এছাড়াও, আমার ভালো লাগে যখন মানুষ আমার হৃদয়ের প্রতি পরম যত্ন এবং বিবেচনা দেখাতে সক্ষম হয়, এবং যখন তারা আমার জন্য সমস্ত কিছু ত্যাগ করতেও সক্ষম হয়। একমাত্র এভাবেই আমার হৃদয় তুষ্ট হতে পারে। এই মুহূর্তে, তোমাদের এমন কী কী বিষয় রয়েছে যা আমি অপছন্দ করি? তোমাদের এমন কী কী বিষয় রয়েছে যা আমি পছন্দ করি? এমনটা কি হতে পারে যে, গন্তব্যের স্বার্থে কদর্যতার যে বিবিধ প্রকাশ তোমরা তুলে ধরেছ তা তোমরা কেউ বুঝতেই পারোনি?

আমার অন্তর থেকে আমি কোনও ইতিবাচক এবং উন্নতিকামী হৃদয়কে আঘাত করতে চাই না, বিশ্বস্ততার সঙ্গে যে নিজের দায়িত্ব পালন করে চলেছে তাকে আমি নিরুৎসাহ করতে তো আরোই চাই না। তবু, আমি তোমাদের প্রত্যেককে মনে করিয়ে দিতে চাই তোমাদের অসম্পূর্ণতা ও তোমাদের হৃদয়ের নিভৃতে থাকা কলুষিত আত্মা সম্পর্কে। আমি এই আশা নিয়ে এমনটা করি যাতে তোমরা আমার বাক্যের সম্মুখীন হওয়ার সময় নিজের প্রকৃত হৃদয় উৎসর্গ করতে পারো, কারণ আমি যা সবচেয়ে ঘৃণা করি তা হল আমার প্রতি মানুষের প্রতারণা। আমার শুধু এটাই আশা যে, আমার কর্মের অন্তিম পর্যায়ে তোমরা অনন্য ভূমিকা পালনে সমর্থ হবে, এবং নিজেদের সর্বান্তকরণে উৎসর্গ করবে, হৃদয়ে দ্বিধা রেখে আর নয়। অবশ্যই, আমিও আশা করি যে তোমরা সবাই একটি ভালো গন্তব্য লাভ করতে পারবে। তবে আমার এখনও কিছু শর্ত আছে, তা হচ্ছে, তোমরা যেন আমার প্রতি তোমাদের একমাত্র ও চূড়ান্ত ভক্তি উৎসর্গ করার সর্বোত্তম সিদ্ধান্তটি নিতে পারো। যদি কারও সেই একক আনুগত্য না থাকে, তাহলে সে অবশ্যই শয়তানের এক মূল্যবান সম্পদ, এবং আমি আর তাকে কাজে লাগাব না বরং তাকে গৃহে পাঠিয়ে দেব যেখানে পিতা-মাতা তার দেখাশোনা করবে। আমার কর্ম তোমাদের পরম উপকারে লাগে; আমি তোমাদের কাছ থেকে যা পাওয়ার আশা করি তা হল একটি সৎ এবং উচ্চাকাঙ্খী হৃদয়, কিন্তু এখনও পর্যন্ত, আমার হাত শূন্য। চিন্তা করো: যদি একদিন আমি এতটাই অসন্তুষ্ট হয়ে পড়ি যা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না, সেক্ষেত্রে তোমাদের প্রতি আমার মনোভাব কীরূপ হবে? আমি কি তখন ততটাই করুণাশীল থাকব যতটা এখন রয়েছি? আমার হৃদয় কি তখন এতটাই প্রশান্ত থাকবে যেমন এখন রয়েছে? তোমরা কি তার অনুভূতি বুঝতে পারো, যে পরিশ্রম করে জমি কর্ষণ করেছে, কিন্তু এক দানাও ফসল ফলাতে পারেনি? তোমরা কি উপলব্ধি করতে পারো, যে, একজন ব্যক্তির হৃদয় কতটা গভীর ক্লেশ অনুভব করে যখন তাকে তীব্র আঘাত করা হয়? তোমরা কি সেই ব্যক্তির মনোকষ্ট অনুভব করতে পারো, যে একদা প্রত্যাশায় পূর্ণ ছিল, কিন্তু তিক্ততার মাঝে সম্পর্ক ত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছে? যে ব্যক্তি প্ররোচিত হয়েছে তার ক্রোধের প্রকাশ কি তোমরা দেখেছ? যে ব্যক্তির সঙ্গে শত্রুতা ও প্রতারণা করা হয়েছে, তার প্রতিশোধস্পৃহা কতটা তা কি তোমরা জানো? যদি তোমরা এই সমস্ত মানুষের মানসিকতা বুঝে থাকো, তাহলে আমি মনে করি প্রতিফল প্রদানের সময় ঈশ্বরের মনোভাব কল্পনা করা তোমাদের পক্ষে কষ্টকর হওয়া উচিত নয়! পরিশেষে, আমি আশা করি গন্তব্যের স্বার্থে তোমরা সবাই আন্তরিক চেষ্টা করবে, তবে চেষ্টায় প্রতারণামূলক উপায় যেন কোরো না, করলে আমি অন্তর থেকে তোমাদের প্রতি অসন্তুষ্ট রয়ে যাব। এবং সেই অসন্তোষের ফলাফল কী? তোমরা কি নিজেদের বোকা বানাচ্ছ না? যারা তাদের গন্তব্যের জন্য চিন্তা করে অথচ সেটিকেই ধ্বংস করে, তাদেরই উদ্ধারলাভের ক্ষমতা সবচেয়ে কম। এমনকী যদি সে উত্তেজিত এবং ক্রুদ্ধ হয়ে ওঠে, তাহলেও কে এমন ব্যক্তির প্রতি করুণা দেখাবে? সারমর্ম হল, আমি এখনও আশা করি তোমরা একটি উপযুক্ত এবং ভালো গন্তব্য লাভ করো, এবং তাছাড়াও, আমি আশা করি যে তোমাদের মধ্যে কেউ যেন বিপর্যয়ের মধ্যে না পড়ো।

পূর্ববর্তী: তুমি কার প্রতি অনুগত?

পরবর্তী: তিনটি সাবধানবাণী

প্রতিদিন আমাদের কাছে 24 ঘণ্টা বা 1440 মিনিট সময় থাকে। আপনি কি ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভের জন্য তাঁর বাক্য শিখতে 10 মিনিট সময় দিতে ইচ্ছুক? শিখতে আমাদের ফেলোশিপে যোগ দিন। কোন ফি লাগবে না।👇

সম্পর্কিত তথ্য

সর্বশক্তিমানের দীর্ঘশ্বাস

তোমার হৃদয়ে এক বিশাল গোপন বিষয় আছে যার ব্যাপারে তুমি কখনও সচেতন ছিলে না, কারণ তুমি বেঁচে আছ আলোকহীন এক জগতে। তোমার হৃদয় আর তোমার আত্মাকে...

একটি সাধারণ আধ্যাত্মিক জীবন মানুষকে সঠিক পথে নিয়ে যায়

তোমরা ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাসের পথে খুব সামান্য অংশই হেঁটেছো, এবং তোমরা এখনও সঠিক পথে প্রবেশ করতে পারোনি, তাই তোমরা এখনও ঈশ্বরের নির্ধারিত...

সেটিংস

  • লেখা
  • থিমগুলি

ঘন রং

থিমগুলি

ফন্টগুলি

ফন্ট সাইজ

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

লাইনের মধ্যে ব্যবধান

পৃষ্ঠার প্রস্থ

বিষয়বস্তু

অনুসন্ধান করুন

  • এই লেখাটি অনুসন্ধান করুন
  • এই বইটি অনুসন্ধান করুন

Messenger-এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন